চিরনিদ্রায় ডা. হারুন

0
40
 নিউজ ডেস্ক |  রবিবার, মে ৩০, ২০২১ |  ৮:৩৫পূর্বাহ্ণ

নগরীর পাঁচলাইশ থানাধীন কাতালগঞ্জ মসজিদ কবরস্থানে মা-বাবার পাশেই চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন শেভরন ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরির ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. এ এ গোলাম মর্তুজা হারুন। গত শুক্রবার দিবাগত ভোর রাত তিনটায় নগরীর বেসরকারি সিএসসিআর হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ) চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি ও ডক্টরস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) চট্টগ্রামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং নগর বিএনপির উপদেষ্টা এ চিকিৎসক (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬৯ বছর। ডা. গোলাম মর্তুজা হারুন কোভিড পরবর্তী জটিলতা নিয়ে লাইফ সাপোর্টে ছিলেন।

এর আগে শনিবার বাদ আছর নগরীর ওয়াসা মোড়স্থ জমিয়তুল ফালাহ জামে মসজিদ মাঠে তাঁর নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপরই কাতালগঞ্জ মসজিদ কবরস্থানে মা-বাবার পাশে প্রবীণ এ চিকিৎসকের লাশ দাফন করা হয়।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গেল ১২ মে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন ডা. এ এ গোলাম মর্তুজা হারুন। আক্রান্ত হওয়ার দিন দশেক পর গত ২৩ মে কোভিড নেগেটিভ হন তিনি। নেগেটিভ হলেও ফুসফুসের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে পড়লে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। কিন্তু করোনা পরবর্তী জটিলতার সাথে লড়াই করে শেষ পর্যন্ত হার মানতে হয় প্রবীণ এ চিকিৎসককে।
সিলেট জেলার বাসিন্দা হলেও বাবার চাকরির সুবাদে ছোট বেলা থেকে বন্দর নগরীতেই বেড়ে ওঠেন ডা. হারুন। নগরীর কলেজিয়েট স্কুল থেকে মাধ্যমিক ও চট্টগ্রাম সরকারি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক শেষে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করে চিকিৎসকের খাতায় নাম লেখান তিনি। তিনি চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের ১৫তম ব্যাচের শিক্ষার্থী ছিলেন। স্ত্রী, এক পুত্র ও এক কন্যা সন্তান ও একমাত্র ভাইকে নিয়ে বসবাস করেন পাঁচলাইশ আবাসিক এলাকাতেই।
বর্ণাঢ্য কর্মজীবনে দক্ষ সংগঠক ও উদ্যোক্তা ছিলেন ডা. হারুন। ১৯৮৪ সালে তাঁর হাত ধরেই চট্টগ্রামের প্রথম বেসরকারি ডায়াগনস্টিক সেন্টার শেভরন প্রতিষ্ঠা হয়। ভালো ক্রিকেটার থাকার সুবাদে চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থা (সিজেকেএস) এর নির্বাহী কমিটির সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। ২০০৩-২০০৯ সাল পর্যন্ত বিএমএ চট্টগ্রাম চ্যাপ্টারের সভাপতি, ১৯৮৭ -২০১৭ সাল পর্যন্ত চট্টগ্রাম প্রাইভেট হসপিটাল মালিক সমিতির সভাপতি, ২০০০-২০০৩ সাল পর্যন্ত চট্টগ্রাম ক্লাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট পদে দায়িত্ব পালন করেন তিনি। এছাড়া ১৯৮৪ সালে চট্টগ্রাম চেম্বার ও ২০০৬ সালে রিহাবের নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। জড়িত ছিলেন বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথেও।
এদিকে ডা. এ এ গোলাম মর্তুজা হারুনের মৃত্যুতে পৃথক বিবৃতিতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও বিশিষ্টজনরা।
বিএনপি : নগর বিএনপির উপদেষ্টা, বিএমএ ও ড্যাব চট্টগ্রামের সাবেক সভাপতি ডা. এ এ গোলাম মর্তুজা হারুনের অকাল মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছে বিএনপি। বরেণ্য এই চিকিৎসকের মৃত্যুতে পৃথক শোক বার্তায় শোক প্রকাশ করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য, সাবেক মন্ত্রী আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী আবদুল্লাহ আল নোমান, চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম, নগর বিএনপির আহবায়ক ডা. শাহাদাত হোসেন, সদস্য সচিব আবুল হাশেম বক্কর, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহবায়ক আবু সুফিয়ান ও সদস্য সচিব মোস্তাক আহমেদ খান।
শোক বার্তায় তাঁরা বলেন, গোলাম মর্তুজা হারুন বিএনপির একজন নিবেদিত প্রাণ ছিলেন। ব্যক্তিজীবনে তিনি একজন আদর্শবাদী মানুষ ছিলেন। বর্তমান রাজনৈতিক সংকটের মধ্যে তার মৃত্যু অত্যন্ত কষ্টের। তার মৃত্যুতে বিএনপি একজন দক্ষ ও যোগ্য পেশাজীবী নেতাকে হারালো। দেশ ও দলের প্রতি তার অবদানের জন্য বিএনপি চিরদিন তাকে স্মরণ করবে।
আ জ ম নাছির উদ্দীন : ডা. এ এ গোলাম মর্তুজা হারুনের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন চৌধুরী।
বিএমএ কেন্দ্রীয় শাখা : বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের আজীবন সদস্য ও বিএমএ চট্টগ্রাম শাখার সাবেক সভাপতি ডা. এ এ গোলাম মর্তুজা হারুনের মৃতুতে বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন ও মহাসচিব ডা. মো. ইহতেশামুল হক চৌধুরী।
বিএমএ চট্টগ্রাম শাখা : বিএমএ চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি অধ্যাপক ডা. মুজিবুল হক খান ও সাধারণ সম্পাদক ডা. মোহাম্মদ ফয়সল ইকবাল চৌধুরী গভীর শোক প্রকাশ করেন। বিবৃতিতে তারা বলেন, ডা. এ এ গোলাম মর্তুজা হারুনের মৃত্যুতে চট্টগ্রামের চিকিৎসক পরিবার ও চিকিৎসা সেবার জন্য অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে।
ড্যাব : ডা. এ. এ গোলাম মর্তুজা হারুনের মৃত্যুতে গভীর শোক ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন ডক্টরস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব) এর কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন, ড্যাব চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ শাখার সভাপতি অধ্যাপক ডা. জসীম উদ্দিন, চট্টগ্রাম জেলা শাখার সভাপতি অধ্যাপক ডা. তমিজ উদ্দিন আহমেদ, মহানগর শাখার সভাপতি অধ্যাপক ডা. আব্বাস উদ্দিন, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. ফয়েজুর রহমান, চট্টগ্রাম জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. বেলায়েত হোসেন ঢালী, মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. ইফতেখারুল ইসলাম এবং ড্যাব এর কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ডা. সরোয়ার আলম।
যৌথ বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ শোক বার্তায় বলেন- ডা. হারুন দল ও দেশের সংকটময় মুহূর্তে সত্যিকার ড্যাবের সাংগঠনিক ভূমিকা পালন করেছেন। বর্তমানে দেশে যে দুঃসময় চলছে আজ তাঁকে হারিয়ে খুবই অনুভব হচ্ছে। তাঁর চলে যাওয়া দেশ ও ড্যাবের জন্য বিরাট শূন্যতা তৈরি করেছে।
চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব : খ্যাতিমান চিকিৎসক ডা. এ এ গোলাম মর্তুজা হারুনের মৃত্যুতে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক বিবৃতিতে ক্লাব’র সভাপতি আলহাজ আলী আব্বাস এবং সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
সিজেকেএস : চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাবেক নির্বাহী সদস্য ও কাউন্সিলর ও সাবেক ক্রিকেটার ডা. এ, এ মর্তুজা হারুনের মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন জেলা ক্রীড়া সংস্থা (সিজেকেএস) সভাপতি জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মমিনুর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক আলহাজ আ.জ.ম. নাছির উদ্দীনসহ জেলা ক্রীড়া সংস্থার নির্বাহী কমিটি, কাউন্সিলরবৃন্দ, সিজেকেএস কর্মচারী কল্যাণ সমিতি।

এছাড়াও শোক জানিয়েছে জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দল ও মহানগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফফর আহমদ।

উত্তর দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here